বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

লিনাক্স সম্পর্কিত আলোচনা
User avatar
অভ্রনীল
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 1507
Joined: Sun May 24, 2009 6:42 pm
লাইসেন্স: by-nc-sa(Creative Commons)
স্ট্যাটাস: উবুন্টু ১০.০৪ [ল্যুসিড লিংক্স]
Location: ঢাকা
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by অভ্রনীল » Sat Jul 11, 2009 1:09 pm

[মাত্র লিনাক্স ব্যবহার করা শুরু করেছি, তাই এক্কেবারে কিছুই জানিনা। অজ্ঞতার কারনে অনেক অপরিপক্ক প্রশ্ন মাথার মধ্যে আসে যেগুলো হয়ত বাঘা বাঘা লিনাক্সবোদ্ধাদের কে জিজ্ঞেস করলে বাঁকা হাসি দিবে! তারপরও তো জানতে হবে, অন্তত নিজের তাগিদেই। তাই মাঝে মধ্যেই আমার এইসব বোকা-সোকা প্রশ্নগুলো নিয়ে ইন্টারনেট ঘাঁটাঘাটি করি। মাঝমধ্যে পেয়ে যাই, কখনো বা লিঙ্কের সাগরে তলিয়ে যাই, কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই এত কাঠখোট্টা-টেকি কথা থাকে যে আমার মত নাদান লিনাক্স-ইউজাররা কঠিনভাবে ভড়কায় যায়। তবে আমি ভড়কায় গেলেও চেষ্টা থামাইনা, কারন আমাকে লিনাক্সের জ্ঞান নিতে হবে, শাস্ত্রে বলা আছে জ্ঞান নিতে সুদূর চীন পর্যন্ত যেতে হবে, কিন্তু চৈনিক সাইটগুলাতে চৈনিক ভাষা ব্যবহার করায় কাজটা আমার জন্য আরো জটিল হয়ে গেছে! যাই হোক নাদান মনের বোকা বোকা সেসব প্রশ্ন নিয়েই এই পোস্ট। আশাকরি সবার সহযোগিতায় একেবারে জলবৎ-তরলনং-উত্তরং পাব।]



উইন্ডোজের যারা কাঁচা ইউজার তারাও জানেন যে নির্দিষ্ট সময় পর পর পিসিতে ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন এবং এরর চেকিং করতে হয়। কেন ডিফ্র্যাগমেন্টেশান করতে হয়? এককথায় বললে বলতে হয় হার্ডডিস্কে সবচেয়ে বড় নিরবিচ্ছিন্ন ফাঁকা জায়গা পেতে ডিফ্র্যাগমেন্টেশান করতে হয়। আর এরর চেকিং এর নাম থেকেই বোঝা যায়, ফাইলের এরর চেক করতে এটা ব্যবহৃত হয় (এর বেশি কিছু অবশ্য আমি জানিনা :C )।

উইন্ডোজে থাকাকালীন সময় প্রায় প্রতি মাসে ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন এবং এরর চেকিং করাটা অভ্যাস ছিল। সেই অভ্যাসের দোষে উবুন্টু ইন্সটলেশনের মাসখানেক পর ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন এবং এরর চেকিং করতে গিয়ে দেখলাম যে এই ব্যাপার গুলো এইখানে নাই। তাহলে কি উবুন্টুতে এরর চেকিং বা ডিফ্রাগমেন্টেশানের দরকার হয়না? নাকি আছে কিন্তু আমি জানিনা যে কীভাবে সেটা ব্যবহার করতে হয়? যদি দরকারই বা না হয় তবে কেন দরকার হয়না (ছোট মুখে বড় কথা :ttt: )?

এইবার টপিকের শিরোনামের শেষ অংশটা। বিভিন্ন ইউএসবি ড্রাইভই বা উবুন্টুতে ফরম্যাট করে কিভাবে? উইন্ডোজের মত মাউসের রাইট বাটন ক্লিক করলে কোন ফরম্যাট অপশন তো আসেনা! আরেকটা জিনিস আমি মাত্র সেদিন আবিষ্কার করলাম। আমি যদি পেন্ড্রাইভ থেকে কোন কিছু ডিলিট করি সেটা ঐ পেন্ড্রাইভের মধ্যেই .Trash একটা ফোল্ডার তৈরি করে স্টোর করে রাখে। তাহলে তো পেন্ড্রাইভ আসলে খালি হলনা! যদি আমি চাই কোন ফাইল পেন্ড্রাইভ থেকে ডিলিট করলে সেটা আর পেন্ড্রাইভে থাকবেনা (উইন্ডোজের মত), সেটা কি করা সম্ভব?

User avatar
উন্মাতাল তারুণ্য
সমন্বয়ক
Posts: 2944
Joined: Sat Sep 15, 2007 3:48 pm
রক্তের গ্রুপ: O+
লাইসেন্স: by-nc-nd (Creative Commons)
স্ট্যাটাস: অনুগ্রহপূর্বক আমাকে 'techie', 'geek', 'savvy', 'nerd', 'IT expert', 'Linux expert' ইত্যাদি তৈল মর্দিত সম্বোধন করা থেকে বিরত থাকুন।
Location: ২৩°৪২′০″ উত্তর, ৯০°২২′৩০″ পূর্ব
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by উন্মাতাল তারুণ্য » Sat Jul 11, 2009 8:09 pm

সোজা করে বললে, লিনাক্স যে ফাইল সিস্টেম ব্যবহার করে অর্থাৎ জার্নালিং ফাইল সিস্টেমে (যেমন: Ext2, Ext3, JFS ইত্যাদি) ডাটার ফ্র্যাগমেন্টেশনের তেমন সমস্যা নেই বলে সেভাবে ডিফ্র্যাগমেন্টেশন সফটওয়্যার ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়ে না। তবে এই ফাইলিং সিস্টেম উইন্ডোজের ফাইলিং সিস্টেমের মত ডিস্কের মাঝে যত্রতত্র ডাটা রাইট করে ফাঁক-ফোকর সৃষ্টি না করলেও বড় কোন ফাইল ছোট ছোট কয়েক ভাগে ভাগ হয়ে রাইট হতে পারে। লিনাক্সে কালে ভদ্রে যে কিছু ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টার ব্যবহৃত হয় সেগুলো মূলত এই ফাইলগুলোকে আরেকটু গোছানোর জন্য ব্যবহার হয়। তবে আমার ধারণা এই ডিফ্রাগমেন্টেশন করা বা না করার উপর ডিস্কের আয়ুষ্কাল বাড়া-কমার কোন হের ফের হওয়ার কারণ নেই।

এখানে একটু ঢুঁ মেরে দেখতে পারেন। ব্যাপারটা চিত্র সহকারে বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে। বাংলায় ভাল করে মনে হয় শাহী ভাই বলতে পারবেন।

এইবার দ্বিতীয় প্রশ্নে উত্তরে আসি। এর আগে কি কখনো খেয়াল করেছেন উইন্ডোজেও কিন্তু ইউএসবি ড্রাইভে Recycler নামে একটা লুকানো ফোল্ডার তৈরি হত। লিনাক্সের Trash ফোল্ডারও উইন্ডোজের Recycle Bin এর মত একই রকমের জিনিস। দুটোর কাজ হচ্ছে একবার ডিলিট করা ডাটা পুনরায় রিস্টোর করার করার একটা সুযোগ রাখা। পেন ড্রাইভ সংযুক্ত থাকা অবস্থায় আপনার Trash বক্সটা খালি করে নিলেই পেন ড্রাইভ খালি হয়ে যাবে।

পেন ড্রাইভ (বা অন্য যে কোন ড্রাইভ) ফরম্যাট করার জন্য GParted ব্যবহার করুন। কমান্ড লাইনের সমাধানগুলো না ধরাই ভাল। কারণ ওখানে ড্রাইভের নাম উল্টা-পাল্টা দিলেই অন্য ড্রাইভ ফরম্যাট হয়ে যাবে। GParted ইন্সটল করার জন্য টার্মিনালে লিখতে পারেন:

Code: Select all

sudo apt-get install gparted
কিংবা সিনাপ্টিক ম্যানেজারে গিয়ে GParted লিখে খুঁজতে পারেন

অথবা [url=apt://gparted]এইখানে[/url] একটা টোকা দিয়ে ১০-১২ সেকেন্ড অপেক্ষা করলে ইন্সটল শুরু হয়ে যাবে।

ইন্সটল শেষে একে খুঁজে পাবেন Partition Editor নামে System > Administration > Partition Editor নামে।

এখানে একটু বলে রাখি GParted আসলে Parted নামের একটি পার্টিশন ম্যানেজার সফটওয়্যারের গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস মাত্র। Parted উবুন্টুর সাথে ইন্সটল হয়ে যায়। এই গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেসটি লাইভ সিডি-তে নিজে নিজে লোড হলেও মূল ইন্সটলেশনের সময় নিজে নিজে ইন্সটল হয় না।
" 'কত বড়ো আমি' কহে নকল হীরাটি। তাই তো সন্দেহ করি নহ ঠিক খাঁটি॥ " - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

স্বপ্নচারী
সমন্বয়ক
Posts: 817
Joined: Sat Sep 15, 2007 10:26 pm
Location: কভেন্ট্রি, ইংল্যান্ড
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by স্বপ্নচারী » Sat Jul 11, 2009 8:48 pm

কোন ফাইল শুধু ডিলিট করলে সেটা ট্র্যাশে যায়। শিফট+ডিলিট সম্পূর্ণ ডিলিট করে। এছাড়া কনটেক্সট মেনু (রাইট ক্লিক মেনু)-তে আরেকটা এন্ট্রি ঢোকানো যায় প্রেফারেন্স থেকে।

User avatar
অয়ন খান
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 2159
Joined: Wed Dec 17, 2008 6:32 pm
রক্তের গ্রুপ: B+
লাইসেন্স: by-nc-sa(Creative Commons)
স্ট্যাটাস: ব্যস্ততার ∞ লুপে আটকে আছি!
পছন্দ করি: তথ্য প্রযুক্তি, ফ্রি এ্যান্ড ওপেন সোর্স সফটওয়্যার, লিনাক্স, লিনাক্স মিন্ট, কেডিই, পিএইচপি
Location: ঢাকা, বাংলাদেশ


বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by অয়ন খান » Sat Jul 11, 2009 10:39 pm

উবুন্টু প্রতি ২০ বার সফলভাবে শাট ডাউনের পর স্টার্টআপের সময় নিজ থেকেই প্রয়োজন মত ডিস্ক স্ক্যান করে নেয়।
<Blog> ayonkhan.com
<Me on> twitter.com/#!/ayonkhan | last.fm/user/ayonkhan

User avatar
অভ্রনীল
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 1507
Joined: Sun May 24, 2009 6:42 pm
লাইসেন্স: by-nc-sa(Creative Commons)
স্ট্যাটাস: উবুন্টু ১০.০৪ [ল্যুসিড লিংক্স]
Location: ঢাকা
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by অভ্রনীল » Mon Jul 13, 2009 1:56 pm

হুমম... তার মানে দাঁড়ালো লিনাক্সে ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন এবং এরর চেকিং নিয়ে চিন্তা ভাবনা করার কোন দরকার নাই! আমার হয়ে লিনাক্সই এইসব দেখভাল করবে! আহা কী শান্তি!

User avatar
জাহিদ সুমন
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 922
Joined: Sun May 25, 2008 6:35 pm
রক্তের গ্রুপ: A+
লাইসেন্স: by-nc-nd (Creative Commons)
Location: Bangladesh
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by জাহিদ সুমন » Mon Jul 13, 2009 3:01 pm

ডিফ্রাগমেন্ট প্রসেস কেন প্রয়োজন হয় উইন্ডোজে তার জন্য আমাদেরকে উইন্ডোজ সিস্টেম এর ডিজাইনের দিকে লক্ষ্য করতে হবে। এজন্য আমার আগের একটি পোস্ট আছে এ ফোরামে- উইন্ডোজ এক্সপি-টিপস এন্ড ট্রিকস নামে। তবে ফ্রাগমেন্ট এর জন্য যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশী প্রভাব বিস্তার করে থাকে তা হচ্ছে উইন্ডোজের নিজস্ব সোয়াপ ম্যানেজমেন্ট( বা ভার্চ্যুয়াল মেমোরী ম্যানেজমেন্ট)। আমরা সবাই জানি যে, সোয়াপিং সিস্টেম আসলে র‌্যাম এর সহায়ক হিসেবে কাজ করে থাকে। অর্থাৎ র‌্যামে জায়গা না থাকলে অপারেটিং সিস্টেম কোন ফাইলকে সোয়াপ মেমোরীতে স্থানান্তর করে থাকে। তাহলে আসুন দেখি কিভাবে এ সোয়াপিং সিস্টেম ফাইল ফ্রাগমেন্টে ভূমিকা রাখে।

উইন্ডোজে সোয়াপ এর জন্য আলাদা কোন পার্টিশন থাকে না। আপনার ব্যবহৃত পার্টিশন (সি/ডি/ই/এফ বা অন্য যেকোন ড্রাইভ) কে-ই সোয়াপ হিসেবে ব্যবহার করে থাকে। কম্পিউটার রিস্টার্ট দিলেই সোয়াপ এ অবস্থিত ফাইলগুলি আর থাকে না। অর্থাৎ স্থানটি ফাকা হয়ে যায়। সোয়াপ এর জন্য উইন্ডোজ এজন্য আপনার পার্টিশন এর কিছু জায়গা রিজার্ভ করে রাখে। তবে প্রয়োজনমত এটি বাড়িয়ে বা কমিয়ে সে ব্যবহার করতে পারে।

এবার আসি মূল কথায়। ধরুন আপনি একটি প্রোগ্রাম যেমন এম.এস.ওয়ার্ড চালু করলেন। তাহলে উইন্ডোজ এটিকে প্রথমে র‌্যামে পাঠিয়ে দেবে। কিছু কাজ করলেন এবং সেভ করলেন। তারপর একটি বড়সড় প্রোগ্রাম যেমন ফটোশপ অথবা ফ্ল্যাশ চালু করলেন। এবার উইন্ডোজ যদি আপনার র‌্যাম কিছুটা কম থাকে তাহলে সোয়াপ ব্যবহার শুরু করে দিবে। তারপর আরও কয়েকটি প্রোগ্রাম ওপেন করলেন বা ফায়ারফক্সের মত মেমোরী হাংরী প্রোগ্রামে ব্রাউজ করে যাচ্ছেন। তাই এর সাথে সাথে আপনার সোয়াপের জায়গাও ভরতে শুরু করবে। সুতরাং আপনার হার্ডডিস্কের ফাঁকা অংশ (ধরি ১০০-৫০০ মেগাবাইট) ব্যবহৃত হচ্ছে বর্তমানে সোয়াপ হিসেবে। এবার আপনি একটি ভিডিও/কিছু গান কপি করলেন হার্ডডিস্কে সিডি থেকে। তাহলে আপনার গান/ভিডিওগুলি কোথায় সংরক্ষিত হবে অনুমান করুন তো? হ্যা ঠিক ধরেছেন। সোয়াপ হিসেবে যে অংশ ব্যবহৃত হচ্ছে তার পরের ব্লকগুলিতে ডাটা সেভ করতে থাকবে মনের আনন্দে।

ব্যস সবার শেষে আপনি উইন্ডোজ বন্ধ করে আবার চালু করলেন। তাহলে আপনার সোয়াপ এর ব্যবহৃত অংশ গায়েব হয়ে যাবে। যেহেতু সোয়াপ অস্থায়ী মেমোরী হিসেবে কাজ করে র‌্যামের মত। এভাবে প্রতিদিন কাজ করতে করতেই ফাইল সিস্টেম ফ্রাগমেন্টেড হতে থাকে। তবে যাদের সিস্টেমে র‌্যামের পরিমান বেশী থাকে তাদের ফ্রাগমেন্টেশন তুলনামূলক কম হবে। কেন হবে তাতো আর বুঝিয়ে বলার দরকার নেই।

কিন্তু লিনাক্সে এ রকম কোন ব্যাপার নেই। :v লিনাক্সে সোয়াপ মেমোরীর জন্য পুরো আলাদা পার্টিশন থাকে। তাই সোয়াপ পার্টিশন ফ্র্যাগমেন্টেড হলেও কোন ক্ষতি নেই। রিস্টার্ট দিলেই ফ্রেশ পার্টিশন পাবেন। আর আপনার আসল পার্টিশন থাকবে পুরোপুরি সুরক্ষিত। ঠিক লাইফবয়ের মত.... :-D

তবে লিনাক্সেও defrag নামে একটি পুরাতন টুলস আছে ডিফ্রাগমেন্ট করার জন্য। অবশ্য এটি ডিস্ট্রোগুলির সাথে দেয়া হয় না। কারন লিনাক্সে ফ্রাগমেন্ট নিয়ে সমস্যা তেমন হয়-ই তো না। :v

লিনাক্সে আপনার ফাইল সিস্টেমে কতটুকু ফ্রাগমেন্ট আছে তা দেখতে নিচের কমান্ডটি দিতে পারেন-

fsck -f

আউটপুটঃ
/dev/hda5: 45/8032 files (2.2% non-contiguous), 4170/32098 blocks

উপরের আউটপুটে যে শতকরা (২.২%) অংশটি দেখা যাচ্ছে এটিই হচ্ছে আপনার ফ্রাগমেন্টেশন এর শতকরা হার। তবে এটি দেখার জন্য আপনার ফাইল সিস্টেম অবশ্যই ext2/ext3 টাইপের হতে হবে।

আমি নিজেও লিনাক্স একটানা ২ বছর কোন রকম সমস্যা ছাড়াই ব্যবহার করেছি। ফ্রাগমেন্টেশন এর দরকারও হয়নি। প্রথম ইনস্টলে যেমন স্পিড ছিল ঠিক তেমন স্পিডেই চালিয়েছি সবসময়। আপনিও দেখুন কেমন ফলাফল আসে। তাছাড়া আজকাল উবুন্তুর নতুন এডিশন তো ছয় মাস পরপরই নতুন করে অনেকেই ইনস্টল করে থাকে। সুতরাং ছয় মাস পরপর নতুন এডিশন ইনস্টল করলে একেবারে ফ্রেশ পার্টিশন পাবেন। ডিফ্রাগমেন্টকে তাই বাই বাই জানাতে পারেন।
লিনাক্স নিয়ে লিখছি-বাংলাতে আমার ব্লগে

User avatar
অভ্রনীল
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 1507
Joined: Sun May 24, 2009 6:42 pm
লাইসেন্স: by-nc-sa(Creative Commons)
স্ট্যাটাস: উবুন্টু ১০.০৪ [ল্যুসিড লিংক্স]
Location: ঢাকা
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by অভ্রনীল » Mon Jul 13, 2009 9:29 pm

জাসু ভাই, আপনারে নিয়া আর কি বলবো... অনেক অনেক ধন্যবাদ!!

User avatar
জাহিদ সুমন
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 922
Joined: Sun May 25, 2008 6:35 pm
রক্তের গ্রুপ: A+
লাইসেন্স: by-nc-nd (Creative Commons)
Location: Bangladesh
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by জাহিদ সুমন » Wed Jul 15, 2009 1:31 pm

@অনী ভাই
আপনাকেও স্বাগতম
লিনাক্স নিয়ে লিখছি-বাংলাতে আমার ব্লগে

User avatar
সাইফ
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 805
Joined: Sat Jul 19, 2008 3:30 am
লাইসেন্স: by-nc-nd (Creative Commons)
স্ট্যাটাস: অনলাইন আয় শেখার চেস্টায় আছি....
পছন্দ করি: উবুন্টু লিনাক্স, ফায়ারফক্স, অপেন সোর্স।
Location: হেলানবিহীন টুলে...
Contact:

বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by সাইফ » Wed Jul 15, 2009 11:32 pm

অয়ন খান wrote:উবুন্টু প্রতি ২০ বার সফলভাবে শাট ডাউনের পর স্টার্টআপের সময় নিজ থেকেই প্রয়োজন মত ডিস্ক স্ক্যান করে নেয়।
স্ক্যান ডিক্স কিভাবে করে সেটা দেখার জন্য আমি কস্ট করে একদিনে ২০ বার পিসি অন করে ২০ বার শার্ট-ডাউন করলাম। তেমন কিছু নজরে পরলো না। :s)

User avatar
অয়ন খান
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 2159
Joined: Wed Dec 17, 2008 6:32 pm
রক্তের গ্রুপ: B+
লাইসেন্স: by-nc-sa(Creative Commons)
স্ট্যাটাস: ব্যস্ততার ∞ লুপে আটকে আছি!
পছন্দ করি: তথ্য প্রযুক্তি, ফ্রি এ্যান্ড ওপেন সোর্স সফটওয়্যার, লিনাক্স, লিনাক্স মিন্ট, কেডিই, পিএইচপি
Location: ঢাকা, বাংলাদেশ


বোকা-সোকা প্রশ্নঃ ডিফ্র্যাগম্যান্টেশন, এরর চেকিং আর ফরম্যাট

Post by অয়ন খান » Thu Jul 16, 2009 12:13 am

সাইফ wrote:স্ক্যান ডিক্স কিভাবে করে সেটা দেখার জন্য আমি কস্ট করে একদিনে ২০ বার পিসি অন করে ২০ বার শার্ট-ডাউন করলাম। তেমন কিছু নজরে পরলো না। :s)
চিন্তা করবেন না উবুন্টু নিজ থেকেই রুটিন চেক করবে এবং সেটা স্টার্ট আপের সময়। আর ২০ বার সফলভাবে শাট ডাউনের পরই করে বলে আমি জানি। তবে কখনও গুনে দেখা হয়নি।
<Blog> ayonkhan.com
<Me on> twitter.com/#!/ayonkhan | last.fm/user/ayonkhan

Post Reply

Return to “লিনাক্স”