[phpBB Debug] PHP Warning: in file [ROOT]/phpbb/session.php on line 583: sizeof(): Parameter must be an array or an object that implements Countable
[phpBB Debug] PHP Warning: in file [ROOT]/phpbb/session.php on line 639: sizeof(): Parameter must be an array or an object that implements Countable
[phpBB Debug] PHP Warning: in file [ROOT]/includes/functions.php on line 4516: Cannot modify header information - headers already sent by (output started at [ROOT]/includes/functions.php:3262)
[phpBB Debug] PHP Warning: in file [ROOT]/includes/functions.php on line 4516: Cannot modify header information - headers already sent by (output started at [ROOT]/includes/functions.php:3262)
[phpBB Debug] PHP Warning: in file [ROOT]/includes/functions.php on line 4516: Cannot modify header information - headers already sent by (output started at [ROOT]/includes/functions.php:3262)
আমাদের প্রযুক্তি • পদার্থ ও পদার্থের ভৌত অবস্থা
Page 1 of 1

পদার্থ ও পদার্থের ভৌত অবস্থা

Posted: Sat Jun 30, 2012 6:01 am
by kalam
(বিঃ দ্রঃ- লেখাটি নবম-দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য উপযুক্ত। লেখাটিতে একটি চিত্র সংযুক্ত করতে ব্যর্থ হয়েছি; সংযুক্ত করতে পারলে ভাল হত)

আমরা জানি মহাবিশ্বে যেসব জিনিসের ভর ও আয়তন আছে তাদেরকেই পদার্থ বলা হয়। আমরা এটাও জানি- যেকোন পদার্থ সাধারনত তিনটি ভৌত অবস্থায় থাকতে পারে। পদার্থের এ তিনটি ভৌত অবস্থা হলোঃ কঠিন, তরল ও গ্যাসীয়। এখন যদি প্রশ্ন করা হয়- পদার্থের এই তিন ভৌত অবস্থার বিশেষ বৈশিষ্ট্যগুলো কি কি? সহজভাবে এর উত্তর হলো-
কঠিন অবস্থাঃ নির্দিষ্ট আকার ও আয়তন আছে
তরল অবস্থাঃ নির্দিষ্ট আয়তন আছে কিন্তু আকার নেই
গ্যাসীয় অবস্থাঃ নির্দিষ্ট আকার ও আয়তন নেই
পানিকে (H2O) উদাহরন হিসেবে ব্যবহার করে পদার্থের ভৌত অবস্থার বৈশিষ্ট্যগুলো সহজে অনুধাবন করা যায়। যেমনঃ বরফ (ice) হলো পানির কঠিন অবস্থা যার নির্দিষ্ট আকার ও আয়তন আছে। জলীয় বাস্প (vapour) হলো পানির গ্যাসীয় অবস্থা যার নির্দিষ্ট আকার বা আয়তন নেই। আবার আমরা যাকে পানি (water) বলি তার ভৌত অবস্থা হলো তরল।
আবার যদি প্রশ্ন করা হয়, কঠিন অবস্থায় পদার্থের নির্দিষ্ট আকার ও আয়তন থাকে কিন্তু গ্যাসীয় অবস্থায় কেন নির্দিষ্ট আকার বা আয়তন থাকে না? আবার তরল অবস্থায় কেন শুধু নির্দিষ্ট আয়তন থাকে কিন্তু আকার থাকে না? নীচে আলোচনার মাধ্যমে আমরা এসব প্রশ্নের উত্তর বুঝতে চেষ্টা করব।
গঠন বিশ্লেষনে দেখা যায়- পদার্থ হলো অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কনিকার (অর্থাৎ পরমাণু, অনু, বা আয়ন) যৌথ অবস্থান। এই যৌথ অবস্থানের মূল কারন হলো কনিকাসমূহের মধ্যে একে অপরের প্রতি আকর্ষনবোধ বা আকর্ষন শক্তি (attraction between individual particles)। পদার্থের ভৌত অবস্থা নির্ভর করে কনিকাগুলোর যৌথ অবস্থানের শৃঙ্খলা বা স্বাধীনভাবে চলাচলের সীমাবদ্ধতার উপর যা মূলতঃ বিদ্যমান আকর্ষন শক্তির প্রবলতা/মাত্রা (strength) দ্বারা নির্ধারিত হয়। কঠিন অবস্থায় এ আকর্ষন শক্তির মাত্রা সর্বাধিক। তাই কঠিন অবস্থায় কনিকাগুলো খুব কাছাকাছি অবস্থান করে এবং তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকলে তাদের মধ্যে গড় দূরত্বের পরিবর্তন হয় না। অর্থাৎ প্রবল আকর্ষন শক্তির কারনে কঠিন পদার্থের কনিকাগুলো চলাফেরা না করে (সাধারনত) সুশৃঙ্খল ভাবে একই স্থানে অবস্থান করে। এ কারনেই কঠিন পদার্থের নির্দিষ্ট আকার ও আয়তন থাকে। অন্যদিকে গ্যাসীয় পদার্থের কনিকাগুলোর বিদ্যমান আকর্ষন শক্তির মাত্রা এতই কম যে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই ইহা নগন্য হিসেবে বিবেচিত হয়। এই নগন্য আকর্ষন শক্তির কারনে, অন্যভাবে বাধাপ্রাপ্ত না হলে, গ্যাসের কনিকাগুলো স্বাধীনভাবে চলাচল করে। তাই গ্যাসকে যে আবদ্ধ পাত্রে বা সিলিন্ডারে রাখা হয়, সে পাত্র/সিলিন্ডারের মধ্যে সমস্ত জায়গা জুড়ে কনিকাগুলো চলাফেরা করে। অর্থাৎ গ্যাসকে যে সিলিন্ডারে রাখা হয় সে সিলিন্ডারের আকার ও আয়তনকে অধিগ্রহন করে। অন্যভাবে বলা যায়- গ্যাসীয় অবস্থায় কনিকাগুলোর মধ্যে বিদ্যমান আকর্ষন শক্তি নগন্য হওয়ায় গ্যাসের নির্দিষ্ট আকার ও আয়তন থাকে না
তরল পদার্থের কনিকাগুলোর বিদ্যমান আকর্ষন শক্তির মাত্রা গ্যাসীয় অবস্থার চেয়ে বেশী কিন্তু কঠিন অবস্থার চেয়ে কম। ফলে তরল অবস্থায় কনিকাগুলো চলাচলে সীমিত স্বাধীনতা ভোগ করে। অর্থাৎ তরল অবস্থায় কনিকাগুলো আকর্ষন শক্তিকে অতিক্রম করে সীমিত দূরত্ব পর্যন্ত চলাচল করতে পারে কিন্তু এ আকর্ষন শক্তিকে সম্পূর্ন উপেক্ষা করতে পারে না। তাই তরল পদার্থের নির্দিষ্ট আয়তন আছে কিন্তু আকার নেই।