সোমব্রেরো ও কার্ট হুইল গ্যালাক্সি

মহাকাশ বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয় আলোচনা।
Post Reply
User avatar
humaira
নিয়মিত সদস্য
Posts: 97
Joined: Fri Jan 25, 2008 12:42 am
রক্তের গ্রুপ: A+
পছন্দ করি: সাইন্স ফিকশান লিখতে কিন্তু কিছুটা মেটাফিজিক্স ধাঁচের
Location: Toronto, Canada
Contact:

সোমব্রেরো ও কার্ট হুইল গ্যালাক্সি

Post by humaira » Thu Apr 07, 2011 10:49 am

Image
দৃশ্যমান আলোক তরঙ্গে উপস্থাপিত সোমব্রেরো গ্যালাক্সি

নাসার হাবল স্পেস টেলিস্কোপের খুরধার লেন্স তুলে এনেছে সবচেয়ে নয়নাভিরাম আকর্ষনীয় একটি আলোকচিত্র যার নাম সোমব্রেরো গ্যালাক্সি। নিউ জেনারেল ক্যাটালগে নিবন্ধিত নম্বর ৪৫৯৪ এবং মেসিয়ার ক্যাটালগে এর নম্বর ১০৪, তাই এই ছায়াপথটির পরিচয় NGC 4594 বা M 104.

সোমব্রেরো একটি বিশেষ ধরণের মেক্সিকান টুপি, যার মধ্যভাগ উঁচু শীর্ষবিশিষ্ট এবং চারিধার এমন ভাবে বল্টানো থাকে, যা স্কন্ধদেশে চারপাশ জুড়ে ছায়াদান করে । গ্যালাক্সিটির আকৃতির সাথে সোমব্রেরো নামক মেক্সিকান টুপির সাদৃশ্য পাওয়া যায় বলেই এর এরূপ নামকরন। এই ছায়াপথটি অন্য সকল ছায়াপথ থেকে স্বতন্ত্র্য বৈশিষ্ট্যের অধিকারী। কারণ এর কেন্দ্রস্থ অতি উজ্জ্বল দীপ্তিময় শ্বেতশুভ্র স্ফীতাকার অঞ্চলের উপস্থিতি, যার চারিদিক ঘিরে আছে সারিবদ্ধ ঘন ধূলিময় আবরণ। এ ধূলি আবরণ ছায়াপথের সর্পিলাকার বাহু গঠণেও সম্পৃক্ত হতে পারে। কারণ বৈশিষ্ট্যে এটি একটি সর্পিলাকার ছায়াপথ। পৃথিবী থেকে এর প্রান্ত সীমাকে কিছুটা হেলানো অবস্থায় দেখা যায়। খালি চোখে দেখা অসম্ভব বলেই টেলিস্কোপের সাহায্যে virgo ক্লাস্টারের দক্ষিণ প্রান্তে পৃথিবী হতে ২৮ মিলিয়ন আলোকবর্ষ দূরে এর অবস্থান লক্ষ্য করা যায়।

গুরুভার সমৃদ্ধ এই জ্যোতিষ্কটি ৮০০ বিলিয়ন সূর্যের সমতুল্য। সোমব্রেরো ছায়াপথটি ৫০ হাজার আলোকবর্ষ অঞ্চল জুড়ে মহাকাশে বিস্তৃত। আমাদের আবাসস্থল মিল্কিওয়ে যদিও এর দ্বিগুন অর্থাৎ ১ লক্ষ আলোকবর্ষ অঞ্চল জুড়ে মহাকাশে বিস্তৃত। সোমব্রেরো গ্যালাক্সির অভ্যন্তরে প্রায় ২০০০ এর মত গ্লোবিউলার ক্লাস্টারের উপস্থিতি লক্ষণীয় যারা আমাদের ছায়াপথের মতই ১০-১৩ বিলিয়ন বছর প্রাচীন। গ্লোবিউলার ক্লাস্টার বলতে আমরা বুঝি দলবদ্ধ নক্ষত্রগুচ্ছ, যা বৃত্তাকার ও প্রতিসম রূপে প্রতীয়মান। যে কোন ছায়াপথের সূচনালগ্ন পর্যবেক্ষণ করা হয় গ্লোবিউলার ক্লাস্টারের গঠন প্রক্রিয়া দেখে।

সোমব্রেরো গ্যালাক্সির কেন্দ্রস্থ উজ্জ্বল চাকতি সদৃশ আভাময় স্থানটি এক্স রে নিঃসৃত বৃহদাকার অঞ্চল জুড়ে পরিবেষ্টিত, যার কেন্দ্রস্থ গহবরে জ্যোতিষ্কমন্ডলীয় বস্তু নিপতিত হয়ে তৈরি করেছে ১ বিলিয়ন সৌর ভরের সমান কৃষ্ণ গহ্বর।

সময় তখন ১৯১২ সাল। জ্যোতির্বিজ্ঞানী VM Slipher লক্ষ্য করলেন আমাদের থেকে অস্বাভাবিক দ্রুতবেগে ছুটে যাওয়া একটি জ্যোতিষ্ক, যে কিনা প্রতি সেকেন্ডে ৭০০ মাইল দূরে সরে যাচ্ছে। তার মতে এটি কোন অতি প্রাচীন ছায়াপথ না হয়ে পারেই না, যা আবারো প্রমাণ করে দিচ্ছে আমাদের মহাবিশ্ব সদা সম্প্রসারণশীল। তিনিই প্রথম এই ছায়াপথটির ঘূর্ণন পরিমাপ করতে সক্ষম হন।

তারও অনেক পরে ২০০৩ সালে হাবল হেরিটেজের সদস্যরা আরো উন্নত প্রযুক্তি সমৃদ্ধ স্পেস টেলিস্কোপের ক্যামেরার সাহায্যে গৃহীত আলোকচিত্রটি অবশেষে আমাদের উপহার দিয়েছেন। ইনফ্রা-রেড আলোক তরঙ্গের সাহায্যে অস্পষ্টায় আড়াল করা ধূলিকণা ভেদ করে করে নক্ষত্র সৃজনের অঞ্চলগুলো নীচের ছবিতে আরো স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।
Image



কার্ট হুইল গ্যালাক্সি

Image

দক্ষিণ গোলার্ধের আকাশে স্কাল্পটার নক্ষত্রমন্ডলী বরাবর ৫০০ মিলিয়ন আলোকবর্ষ দূরে অপেক্ষাকৃত জটিল গঠণ সম্পন্ন যে গ্যালাক্সিটি সনাক্ত হয়েছে তার নাম কার্ট হুইল গ্যালাক্সি। ঘোড়ার গাড়ির হুইল বা চাকার গঠণের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ বলে এইরূপ নামকরণ। সর্পিলাকার বা উপবৃত্তাকার নয় বরংচ এর মাঝামাঝি একটি আকৃতিতে এ গ্যালাক্সিটিকে অন্তর্ভুক্ত করা যায়। এরূপ গ্যালাক্সিগুলো আকৃতিগত যে বৈশিষ্ট্য প্রদর্শন করে তার সাথে লেন্সের গঠণের মিল থাকার দরুণ এদের লেন্টকুলার গ্যালাক্সিও বলে। কার্ট হুইল এর অন্যতম উদাহরণ। পূর্বে যে রিং গ্যালাক্সির কথা বলেছি সেটিও এ শ্রেণীতে পড়ে।

এই ছায়পথের নিউক্লিয়াস অতি উজ্জ্বল। এটি যেন সরু পাতলা ফিতার সাহায্যে নবীন নীলাভ নক্ষত্র সম্বলিত বহির্বৃত্তাকার বলয়ের সাথে যুক্ত। এরূপ বাহ্যিক সজ্জার কারণ কি হতে পারে তা অনুসন্ধান করতে গিয়ে বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, ২০০ মিলিয়ন বছর পূর্বে এটি একটি সর্পিলাকার ছায়াপথই ছিল। কিন্তু কোন প্রতিবেশী ছায়াপথ এর পাশ দিয়ে অতিক্রম কালে অনুভূত আকর্ষণ বলের তীব্রতায় এর সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে নিপতিত হয়। এতে অত্যাধিক কম্পনে সৃষ্ট চাপ ও তাপ আন্তর্নক্ষত্রীয় গ্যাসীয় উপাদানসমূহকে ছড়িয়ে নিয়ে সৃষ্টি করে অগণিত নক্ষত্ররাজি। তারা তখন নিজেদের ভারে কেন্দ্রীভূত হয়ে পড়ে একটি নির্দিষ্ট অঞ্চল জুড়ে। আর অপেক্ষাকৃত নীলাভ নবীন নক্ষত্র সেই কেন্দ্রকে ঘিরে বৃহৎ অঞ্চল জুড়ে তৈরি করে বাইরের বলয়।

মহাশূন্যে ১ লক্ষ ৫০ হাজার আলোকবর্ষ অঞ্চল জুড়ে এ ছায়াপথটি ব্যাপৃত। সাম্প্রতিক এক্স-রে চিত্র বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা আরো লক্ষ্য করেছেন এই বাইরের বলয়টির আশেপাশে অবস্থান করছে একাধিক ব্ল্যাক হোল। কালের আবর্তে ধীরে ধীরে রাসায়নিক মিথস্ক্রিয়ায় ছায়াপথটি আবারো আকৃতি পরিবর্তন করে হয়তো বা তার পূর্ববর্তী সর্পিলাকার গঠণে ফিরে আসবে কয়েকশত মিলিয়ন বছরের মধ্যেই। আর এরই মধ্যে মানব সভ্যতা উন্নতির এমন এক পর্যায়ে পৌঁছাবে যে টেলিস্কোপ দিয়ে ওই দূরের এসকল ছায়াপথ দেখার প্রয়োজন শেষ হবে। কারণ সে সময়টুকুতে তারা সে ছায়াপথে বার কয়েক ভ্রমণ সম্পাদন করে নেবে অনায়াসে।
Last edited by humaira on Tue Apr 26, 2011 12:33 pm, edited 10 times in total.

User avatar
টেট্রাহোস্ট
প্রযুক্তি মনষ্ক
Posts: 307
Joined: Mon Mar 01, 2010 1:34 am
রক্তের গ্রুপ: A+
স্ট্যাটাস: কাজ করি!
Location: Banani, Dhaka
Contact:

Re: সোমব্রেরো গ্যালাক্সি

Post by টেট্রাহোস্ট » Thu Apr 07, 2011 10:43 pm

জাস্ট ভাবছি, কত শক্তিশালী ছিল এই টেলিস্কোপ ক্যামেরা, মাঝে মাঝে অনেক অবাক হই বিজ্ঞানীদের কাজ কারবার দেখে...অজানার প্রতি তাদের আকর্ষণ নেনো সেকেন্ডের জন্যও থেমে থাকেনা হয়ত!
ওয়েব হোস্টিং | রিসেলার হোস্টিং | অনলাইন রেডিও হোস্টিং
টেট্রাহোস্ট বাংলাদেশ - www.tetrahostbd.com

Post Reply

Return to “মহাকাশ”